৪ টি গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া ২০২১/২০২১ সালের সবচেয়ে লাভজনক ৪ টি ব্যবসার আইডিয়া।

২০২১ সালের সবচেয়ে লাভজনক ৪ টি ব্যবসার আইডিয়া।

একটি লাভজনক ব্যবসা  করার জন্য আমরা সবাই ভেবে থাকি।কিন্তু  লাভজনক একটি ব্যবসার আইডিয়া খুজতে গিয়েেআেো হিমশিম খেয়ে যাই।কোন ব্যবসার আইডিয়া টি ভালো হবে তা আমরা মনস্থির করতে পারিনা।তাই আজ আমরা আপনাদের মাঝে গ্রামে করা যাবে এমন ৪ টি গ্রামের  ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করব।

৪ টি গ্রামের  ব্যবসার আইডিয়া ২০২১/২০২১ সালের সবচেয়ে লাভজনক ৪ টি ব্যবসার আইডিয়া।
৪ টি গ্রামের  ব্যবসার আইডিয়া ২০২১

আপনি শহরে ব্যবসার  জন্য ভাবুন কিংবা গ্রামে ব্যবসার কথা ভাবুন  না কেন আপনার প্রধান  লক্ষ্য মুলত দুটি।এক,সম্ভাব্য গ্রাহকদের সেবা দেওয়া এবং দুই,সেবা দেওয়ার পাশাপাশি ব্যবসা থেকে মুনাফা অর্জন করা/লাভ করা।আমাদের প্রথমে মাথায় রাখতে হবে যে,শহরের ব্যবসার  তুলনায় গ্রামের ব্যবসার তুলনামুলকভাবে সহজ হলেও বেচা-বিক্রি তুলনামুলক কম হয়ে থাকে।গ্রামের ব্যবসার   অনেক সুবিধা রয়েছে।

গ্রামের  ব্যবসার সুবিধাসমূহঃ-

১)জায়গা সহজেই পাওয়া যায়।
২)জায়গার ভাড়া কম লাগে।
৩)শ্রমিক খরচ কম।
৪)চাহিদামত শ্রমিক পাওয়া যায়।
৫)ব্যবসা শুরু করার ধাপগুলো তুলনামুলক সহজ হয়।

গ্রামে ব্যবসা শুরু করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে জানতে হবে যে এলাকায় ব্যবসায়টি শুরু করার জন্য ভাবছেন সে এলাকাটি আপনার ব্যবসার আইডিয়াটির জন্য উপযুক্ত কিনা। ঐ এলাকা নিয়ে জরিপ কাজ করতে হবে।অর্থাৎ ঐ এলাকার মানুষের আয়-ব্যয় ও চাহিদার উপর ভিত্তি করে আপনাকে একটি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়ানির্বাচন করতে হবে।এবার আসুন জেনে নিই গ্রামে ব্যবসা শুরু করার জন্য ৪টি ব্যবসার আইডিয়।

গ্রামের  ব্যবসার আইডিয়া সমূহঃ-

প্রথম ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে অনলাইন ব্লগ ব্যবসায় ।

আপনি গ্রামে থাকেন আর শহরে থাকেন না কেন,আপনি এই ব্যবসায় টি যেকোন জায়গায় বসে শুরু করতে পারেন।আপনার যদি ইংলিশ বা বাংলা লেখার ভালো দক্ষতা থাকে তাহলে আর দেরি না করে  ব্যবসার এই আইডিয়া টি কাজে লাগিয়ে ব্যবসায় টি শুরু পারেন।বর্তমানে Google blogger এর কল্যানে বিনা ইনভেস্টে এই ব্যবসায় টি শুরু করতে পারবেন ।সাধারনত গ্রামে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট নাও থাকতে পারে,তবে কোন সমস্যা নেই,আপনি আপনার মোবাইলফোনের মাধ্যমে ডাটা ব্যবহার করতে পারবেন।গ্রামে বসে ব্লগ চানানো আর শহরে বসে ব্লগ চালানোর কোন পার্থক্য নেই শুধুমাত্র ইন্টারনেট ছাড়া।শুধু আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং ইন্টারনেট সংযোগ রয়েছে।আপনি আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমেও প্রাথমিক ভাবে শুরু করতে পারেন।বিশ্বাস করুন একটি অনলাইন ব্লগ আয়ের একটি অন্যতম সেরা একটি মাধ্যম হতে পারে।যদি সত্যিকার অর্থে আপনি এই কাজে আপনার প্যাসন ইনভেস্ট করতে পারেন।ব্যবসার আইডিয়া টি আপনার ভালো লাগলে আর দেরি না করে এখনই ব্যবসায়টি শুরু করেন।

আরও পড়ুনঃ-

বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসায় আইডিয়া ২০২১। New  Business Plan 2021.

জীবন কিভাবে সুন্দর করা যায় এমন ৬টি গুরুত্বপূর্ন টিপস।

দ্বিতীয় ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে কম্পিউটার প্রশিক্ষন ইনস্টিটিউট ব্যবসায়।

আধুনিক বিশ্বে আপনি যদি একজন কম্পিউটার বিশেষজ্ঞ হয়ে থাকেন এবং এই শিল্পে ব্যবসায় শুরু করতে চান,তবে আপনি আপনার গ্রামে কম্পিউটার প্রশিক্ষন ব্যবসায়টি শুরু করতে পারেন।শুরুর দিকে শিক্ষার্থী পেতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।তবে এই ব্যবসায়টি যে লাভজনক তাতে কোন সন্দেহ নেই।প্রাথমিক অবস্থায় আপনি ৩-৫ টি কম্পিইটার দিয়ে শুরু করতে পারেন।পরে ধীরে ধীরে  ব্যবসায়টি উন্নতি হলে প্রয়োজন বুঝে কম্পিউটার কিনে নিতে পারেন।ব্যবসার আইডিয়াটি আপনার ভালো লাগলে আজই ব্যবসায়টি শুরু করার কথা ভাবুন,নাহলে অন্য কেউ আইডিয়া টি নিয়ে নিবে।

তৃতীয় ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে একসাথে হাঁস ও মাছের সমন্বিত চাষ ব্যবসায়।

এই ব্যবসায়টি শুরু করতে চাইলে আপনার বড় একটি জলাশয় থাকতে হবে। পুকুরে ছোট করে চাষ করা যেতে পারে তবে বানিজ্যিকভাবে শুরু করতে হলে বড় একটি ঘেড় বা জলাশয় থাকতে হবে।হাসেঁর বাসস্থান জলাশয় এর উপরে করতে হবে এবং হাঁ নামা উঠার জন্য শিঁড়ি করে দিতে হবে।তবে খেয়াল রাখতে শিড়ি যেন পানি থেকে খুব বেশি উঁচু না হয়।উঁচু হলে হাঁস নামা উঠার অসুবিধা হবে।খাঁকি ক্যাম্বেল ও ইন্ডিয়ান রানার এই দুই জাতের হাস দিয়ে এই ব্যবসায়টি শুরু করতে পারেন।হাঁস পানিতে সাতাঁর কাটবে যা মাছের স্বাস্থের জন্য উপকারি এবং জলাশয়ে হাঁস সাঁতার কাটার ফলে জলাশয়ের অক্সিজেনের ঘাটতি পুরন করে।এছাঢ়া হাঁস পালন করলে মাছের খাবারের খরচ তুলনামুলক অনেক কম হয়।কারন হাসেঁর মলমূত্র মাছের খাদ্য হিসাবে ব্যবহার করা হয়।যদি আপনার একটি জলাশয় থাকে তবে আর দেরি না ব্যবসার  আয়ডিয়াটি আপনার জন্যই এবং ব্যবসায়টি শুরু করে দিতে পারেন।

চতুর্থ ব্যবসার আইডিয়া হিসেবেবানিজ্যিকভাবে ছাগল পালন ব্যবসায়।

বানিজ্যিকভাবে ছাগল পালন ব্যবসায়টি দিন দিন জনপ্রিয়তা লাভ করছে। ইতিমধ্যে এটি লাভজনক এবং প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায় খাত হিসাবে পরিচিতি পাচ্ছে।ছোট আকারে ছাগল পালন খুবই সহজ এবং অল্প জায়গার মধ্যে শুরু করা যেতে পারে।তবে বঢ় আকারে বান্যিজিকভাবে ছাগল পালনের জন্য সঠিক পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে।আপনি জেনে অবাক হবেন য়ে ডেইরি খামার ব্যবসার চেয়ে ছাগল পালনে লাভ বেশি।এছাড়াও ছাগলের রোগবালাই তুলনামুলক অনেক কম হয়ে থাকে এবং খুব কম খরচে ছাগল পালন করা যায়।প্রতিটি বয়স্ক ছাগলেন জন্য ১ বর্গমিটার বা ১০ বর্গফুট জায়গার দরকার হয়।আপনার গ্রামে যদি খোলা ও উঁচু জায়গা থাকে,তবে আপনি এই লাভজনক ব্যবসায়টি শুরু করতে পারেন।
 
উপরে ব্যবসা করার জন্য যে ৪ টি গ্রামের  ব্যবসার আইডিয়া দেওয়া হয়েছে এর মধ্যে থেকে যেকোন একটি ব্যবসার আইডিয়া বেছে নিয়ে আপনি ব্যবসায় শুরু করতে পারে।আপনার ব্যবসায় আইডিয়া গুলো পছন্দ হয় তবে অবশ্যই এই আইডিয়া গুলো আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন।

1 Comments

  1. অনেক সুন্দর ও তথ্য বহুল পোস্ট করছেন। গ্রামের ব্যবসা আইডিয়া

    ReplyDelete
Post a Comment
Previous Post Next Post