সাবধান!!ভুল করেও কখনও এই ৪টি বিষয় Google এ Search করবেন না।করলেই মহাবিপদ!!!!!


একসময় এমন ছিল যখন মানুষদের একটি ছোট প্রশ্নের উত্তরের জন্য বহু বই পড়তে হতো,তবেই সেই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যেত।কিন্তু আজ আর সেই অবস্থা নেই ।এবং আজ আপনার সেই প্রশ্ন ও উত্তরের মধ্যে দুরুত্ব কেবল একটি মাত্র ক্লিক!!এ প্রথিবীর সবচেয়ে বড় Search Engine হলো Googleআজ কোন প্রশ্নের উত্তরকে জানা কোন কঠিন কাজ নয়।প্রথিবীর প্রতিটি প্রান্ত থেকে মানুষেরা Google এ তাদের প্রশ্নগুলোকে Search করে থাকে।আপনি শুনে হয়ত অবাক হবেন যে প্রতি সেকেন্ডে Google এ প্রায় ৬৩০০০ হাজার কোন না কোন বিষয়ে Search হয়ে থাকে। Google এতটাই বুদ্ধিমান যে সে আপনার প্রতিটি কাজ-কর্ম সম্পর্কে জানে।আপনি কখন ঘুম থেকে উঠেন,আপনি কখন স্কুল,কলেজ বা অফিসে যান,আপনি কোন কোন মানুষের সাথে দেখা করেন,এমনকি আপনার কোন জায়গাগুলোতে যেতে বেশি পছন্দ করেন সেগুলো এছাড়াও আপনার সম্পর্কে বহু তথ্য Google তার ডেটা সেন্টারে স্টোর/জমা করে রাখে।


সাবধান!!ভুল করেও কখনও এই ৪টি বিষয় Google এ Search করবেন না।করলেই মহাবিপদ!!!!!
গুগল সম্পর্কে অজানা তথ্য

আপনি হয়ত এটা অবশ্যই লক্ষ্য করে দেখেছেন যে যদি Flipkart বা Amazon এ কোন প্রডাক্টকে ক্রয়ের জন্য Search করেন ‍তখন সেই প্রডাক্টক সম্পর্কিত বহু বিজ্ঞাপন আপনার ফেসবুকে একাউন্টে এবং মেইল এমনকি আপনার ব্রাউজারে দেখানো শুরু করে।এর অর্থ হলো আপনি কি কি Search করেছেন তার প্রতিটি বিষয়কে Google পর্যালোচনা করছেন,আর আপনি তা জানতেও পারছেন না।এই কারনে জন্য এমন কিছু বিষয় রয়েছে যেগুলোকে Google এ Search করা একদমই উচিৎ নয়।আজকের এই ব্লগে আমি আপনার এমন ৪টি বিষয়কে বলব যেগুলোকে Google এ Search করা আপনার একদম উচিৎ নয়।এমনকি এগুলো Google এ Search এর ফলে আপনার মারাত্মক বিপদ হতে পারে।


যে  ৪টি বিষয় Google এ কখনোই  Search করবেন না।

১)কখনো সন্ত্রাসবাদ/ক্রিমিনাল সংক্রান্ত শদ্ব বা বিষয় কখনো Google এ Search করবেন না।যেমন বন্দুক,বুলেট,বোম কিভাবে তৈরি করা হয়? ইত্যাদি।এই ধরনের শদ্বগুলোকে আপনি Google এ কোনদিন Search করবেন না।আজ সারা বিশ্ব সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে ভুগছে।বিশ্ব সন্ত্রাসবাদকে রোধ করার জন্য UN(United Missions)সকল দেশকে নিয়ে এই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেই চলেছেন।এই কারনের জন্য প্রতিটি দেশের সরকার এই সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কিত Keyword এর লিস্ট তৈরি করেছে।এই Keyword গুলো যদি Google এবং অন্যান্য সোস্যাল মিডিয়ায় Search করা হয় তবে সেই ব্যবহারকারিদের Ip Address Track করে প্রশাসন তাদের হেফাজতে নিতে পারবে।এমন ধরনের আইন প্রতিটি দেশের সংবিধানে লেখা রয়েছে।তাই ভুল করে বা কৌতূহলবশত যদি আপনি Google এ সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কিত Keyword  Search করে ফেলেন,তাহলে জেনে রাখুন যে আপনার দেশের পুলিশ সময় আপনাকে আটক করতে পারে।তাই এই ধরনের Keyword আপনার Google এ Search করা উচিৎ নয়।


আরও পড়ুনঃ-ফেসবুক আইডি হ্যাক থেকে বাঁচার উপায় কী???


২)নিজের তথ্য জাতিয় কিছু  Google এ Search করবেন না।এই ভুলটাই বেশিরভাগ মানুষ করে থাকে।কৌতূহলবশত নিজের নাম,ঠিকানা,মেবাইল নাম্বার,নিজের,ই-মেইল ইত্যাদি অনেক মানুষ Google এ Search করে থাকে,এই দেখার জন্য যে Search করলে কি আসতে পারে??যদি আপনিও এমনটি করে থাকেন তাহলে জেনে রাখুন যে রেজাল্ট আসুক বা না আসুক কিন্তু আপনার ইনপুট করা তথ্য/ডেটা Google এর ডেটাবেজে/তথ্যভান্ডারে ষ্টোর/জমা হয়ে গেল।অর্থাৎ আপনার নাম,ঠিকানা,মেবাইল নাম্বার,নিজের,ই-মেইল এবং আপনার বর্তমান লোকেশন  ইত্যাদি Google এর ডেটাবেজে/তথ্যভান্ডারে জমা হয়ে গেল।মনে রাখবেন বর্তমানে যে কোম্পানির কাছে যত বেশি ডেটা থাকবে সে কোম্পানি তত বেশি শক্তিশালী।আপনার এই ডেটাকে সেই কোম্পানি যেকোন সময়ে যেকোন কাজে ব্যবহার করতে পারে।তাই Google এ এসব বিষয়ে Search করা থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।


আরও পড়ুনঃ-ইউটিউব এর ৫ টি গুরুত্বপূর্ন সেটিংস করে নিন এখনই !!!


৩)Never Search Cancer Causing foods.অর্থাৎ কোন কোন খাবার খাওয়ার ফলে ক্যান্সার হয় এমন বিষয়ে কোনদিনই Google এ Search করা উচিৎ নয়।দেখুন এই বিশাল ইন্টারনেট জগতে সব তথ্যই যে সঠিক হবে তার কিন্তু কোন গ্যারান্টি নাই ।যদি আপনি Google এরকম Keyword লিখে Search করেন তাহলে আপনি যে রেজাল্টগুলোকে পাবেন সে রেজাল্টগুলো পুরোপুরিভাবে আপনাকে হতাশ করে দিবে!!!কারন ইন্টরেনেটে এমনও কিছু ব্লগ রয়েছে যেখানে বলা হয়েছে ক্যান্সার নাম কোন রোগ ই নাই।ডক্টরস এবং ঔষধ কোম্পানিগুলো তাদের ঔষধ গুলোকে বিক্রি করার জন্য  এই ধরনের তথ্য ছড়িয়েছে ।তাই ক্যান্সারের মত মারাত্মক বিষয়গুলিকে Google এ Search না করে বরং সেই সময়ে কোন ডক্টরের কাছে যোগাযোগ করা সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হবে।যদি খাবারের জিনিসের সাথে ক্যান্সার লিখে Google এ Search করেন তাহলে আপনি দেখতে পারবেন সেখানে প্রায় সব খাবার গুলোকেই ক্যান্সারের কারন হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে।তাই হতাশ হওয়ার পরিবর্তে ডক্টরের সাথে পরামর্শ করা উচিৎ।


আরও পড়ুনঃ-ইমুতে এড বন্ধ করার উপায় -২০২১/ইমুতে এড বন্ধ করবেন কিভাবে?। 


৪)Never Search How to abort a child.দেশের ভিতর এবরশান/গর্ভপাত একটি সংবেদনশীল ক্রন হয়ে দাড়িয়েছে।প্রতিটি দেশের সরকার এই গর্ভপাত এই প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যে শিশু ভ্রুন হত্যা যেন পুরোপুরিভাবে বন্ধ হয়ে যায় এবং ছেলে এবং মেয়ের অনুপাত যেন সমান থাকে। আর আপনি এই পরিস্থিতিতে যদি আপনি Google এ Search করেন How to abort a child,তাহলে জেনে রাখুন এই Search আপনাকে কোর্ট পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারে।তাই এই ধরনের Keyword লিখে Search করা একদম উচিৎ নয়।


আরও পড়ুনঃ-why phone blast?।যেসব ভুলের জন্য মোবাইল Blast হতে পারে।


যে চারটি পয়েন্ট আমি আপনাকে বল্লাম সে পয়েন্টগুলোর মধ্যে থেকে কোন ধরনের Keyword আপনার Google এ Search করা আপনার একদম উচিৎ নয়।কারন আপনার দেশের সরকার এবং Google আপনার প্রতিটি কাজের বিষয়ে নজর রাখছে এবং তা ডেটাবেজে জমা করে রাখছে। এই ব্লগটি থেকে যদি আপনি সামান্য কিছু জানতে পারেন বা আপনার ভাল লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবে না।

 

 

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post