মনের কথা/ মানুষের মনের কথা জানার মন্ত্র /মানুষের মন বোঝার সহজ উপায় গুলো কি কি??

 

আমাদের চারপাশে এমন কিছু ঘটনা ঘটে,যেগুলো আমরা বুঝতে পারি না সেগুলো কেন ঘটল??কেউ কারো সাথে করে কিছু খারাপ ব্যবহার বা ভালো ব্যবহার।কোন মানুষ অনেক সময় ভালোটাই পায়,কোন মানুষ আবার খারাপটাও পায়।কেন পায়?? তার পিছনে কিন্তু আপনার মনটা লুকিয়ে আছে।আপনার মনের অবস্থা যেমন হবে,তেমন ভাবেই কিন্তু এই জিনিসগুলো হয়।তো আজকের ব্লগে আমরা এমন কিছু মানসিক(মনের কথা জানার) টিপস দেখে নিব,কিছু ট্রিকস দেখে নিব এবং কিছু এমন গোপন ঘটনা জানব,যেগুলো জানলে অন্ত্যত বুঝতে পারবেন আপনার সাথে কি হতে চলেছে বা কি হবে  বা কোন মানুষের সাথে কেমন ভাবে মিশবেন বা মানুষ কখন কি করে ।সুতরাং এই মজার ব্লগটি শেষ অবধি মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন এবং আমি কথা দিলাম এই ব্লগে আপনি এমন কিছু জানবেন যা আগে জানতেন না!!চলুন তাহলে জেনে নিই সেই টিপস এন্ড ট্রিকস গুলোঃ-


মনের কথা/ মানুষের মনের কথা জানার মন্ত্র /মানুষের মন বোঝার সহজ উপায় গুলো কি কি??ছেলেদের মন বোঝার সহজ উপায় কি?,মেয়েদের মন বোঝার সহজ উপায়কি?
মনের কথা জানার উপায়

শুরুতেই একটি ছোট্ট ব্যবসার কথা বলি অর্থাৎ মার্কেটিং টেকনিক,দেখবেন যখন কোন নামি-দামি ব্রান্ডের জিনিস কিনতে যাবেন বা কোন একটা ভালো দোকানে ঢুকবেন দেখবেন সেখানে ডিসপ্লেতে(সামনে রাখা হয়) বিভিন্ন লোভনীয় জিনিসগুলো  সাজানো থাকে।মনে করুন আপনার সখের মোবাইলটি,প্রথমেই দেখবেন তারা সবচেয়ে দামি,সবচেয়ে চোখে ধরা মোবাইলগুলো সেখানে রাখে।যেগুলো আপনার খুব একটা প্রয়োজনের মধ্যে পরেনা এবং যেগুলো প্রয়োজনের মধ্যে পরে সেগুলো নিচে রাখা থাকে এবং সেগুলোর দামও অনেকটা কম হয়ে থাকে।যেগুলো ডিসপ্লেতে থাকে(সামনে রাখা হয়)  সেগুলো নিরদ্বিধায় আমরা ভাবি সবচেয়ে সুন্দর বা আর্কষনীয় কিংবা আরও ভালো আমরা কিন্তু এমনটাই ভাবি সব সময়।এই আরও ভালো আরও ভালো এটার চক্করে যারা মার্কেট করে তারা জিতে যায় এবং অপ্রয়োজনীয় বেশি দামি জিনিসটা কিনে ফেলেন এবং যেটা প্রয়োজন সেটার দামও কম তবুও সেটাকে এড়িয়ে যান সেই সাথে দোকানদারেও লাভ হয় ।তাই যখনি কিছু কিনবেন,আপনার প্রয়োজনটা দেখুন আগে।কোনটা দোকানে কিভাবে সাজানো আছে,কোনটা ভালো লাগছে সেটাকে কখনও দেখবেননা।


মনের কথা/ মানুষের মনের কথা জানার সহজ উপায় গুলোঃ-

*যখন দেখবেন হাত ভাজ করে মাথাটাকে বেশি উপরে তুলে গম্ভীরভাবে দাড়িয়ে আছে,তখন তাদের মনের মাঝে বেশি অহং(Ego) আছে এটাকেই ভেবে নিবেন।


*যখন দেখবেন একটি ব্যক্তি মাথা নিচু করে দাড়িয়ে আছে বা চুপচাপ টাইপের বা এটু শান্ত-শিষ্ট টাইপের তখন বুঝবেন সম্ভবত তাদের মাঝে স্ব স্ব সম্মানের ঘাটতি রয়েছে যার কারনে এরকম হয়ে,এক কথায় বলা যায় আত্মবিশ্বাসের অভাব রয়েছে।তাই দেখবেন আপনার মনের মাঝে যেন এই গুনগুলো না থাকে।


আরও পড়ুনঃ-সকালে ঘুম থেকে ওঠার উপকারিতা ২০২১


*আর যদি কোন ব্যক্তি তাদের মাথাটাকে সমানভাবে রাখে বা একটু উচু করে রাখে এবং তার মুখে হালকা হাসি থাকে তাহলে বুঝবেন তাদের মনের মাঝে কোন আত্মবিশ্বাসের অভাব নেই।


*যখন দেখবেন কোন ব্যক্তি হাত ভাজ করে অনেক পরিস্থিতীতে দাড়িয়ে আছে তখন বুঝবেন  ব্যক্তিটি সেই পরিস্থিতিটা এড়িয়ে যেতে চায়।এটা মানুষজন তখনি করে যখন যে পরিস্থিতির মধ্যে সে আছে এবং সে পরিস্থিতিটাকে সে এড়িয়ে যেতে চায় বা সেটাকে যখন খুব একটা ভালো লাগেনা এমন সময়।


আরও পড়ুনঃ-অসফল মানুষদের ৬ টি অভ্যাস যা আপনার জানা দরকার ।


*যদি দেখেন কেউ ঠোঁট কামরাচ্ছে,তাহলে আপনি কি ভাব্বেন??জেনে নিন।যখন কোন ব্যক্তি খুব প্রেশারে(কাজের চাপ/টেনশন) থাকে তখন সে এই কাজটি করে।যখন সে অস্বস্তিতে থাকবে,চিন্তায় থাকবে তখন সে ঠোঁটটাকে অজান্তেই কামড়াঁতে থাকে।কিছু কিছু ক্ষেত্রে একটু রোমান্টিক ব্যাপারটা দেখানোর জন্য অনেকে করে থাকে সেটা আলাদা বিষয়।


*কোন মানুষের কোথায় রিঙ্কেলস(বলিরেখা)আছে সেটা দেখেও তার মনের ভাব বুঝা যায়।যেমন চোখের কোনে বা মুখের কোনে বা আশেপাশে যদি বেশি রিঙ্কেলস থাকে তাহলে বুঝবেন সে মানুষটা খুব বেশি হাসে।এবং তাদের মনটা একটু বেশি হাসিখুশি।তারা সাথে থাকলে দেখবেন সবসময় আপনাকে আনন্দতেই রেখে দিবে।



*ঠোঁট বেশি পাতলা টাইপের এবং একটু বদ্ধ টাইপের সেটা তাদের রাগান্বিত ভাবের প্রকাশ করে।


*আপনাকে পছন্দ করে কিনা সেটা জানার জন্য একটি উপায় আছে ।কোন মানুষের সাধারন কথাবার্তা বলার ভঙ্গিটাকে আয়ত্ত করুন।সে কি রকম ভাবে গলা করে কথা বলে সেটাকেও আয়ত্ত করুন। তারপর আপনার সাথে সে কি গলায় কথা বলছে  সেটাকে আয়ত্ত করুন।দেখবেন একটু বেশি উচ্চসরে বা উৎসুকভাবে কথা বলে তাহলে মনে মনে তার আপনার প্রতি একটা মায়া বা টান রয়েছে এবং তার কাছে আপনার জন্য আলাদা একটি জায়গা রয়েছে।


আরও পড়ুনঃ-ঘুমিয়ে থাকলেও  টাকা আসবে এমন ১০ টি বিজনেস আইডিয়া


*যখন মানুষজন একসাথে হাসে তখন একটা মানুষ আরেকটা মানুষের দিকে তখনই তাকায় যখন সে তাকে পছন্দ করে।অর্থাৎ অনেকের মধ্যে হাসতে হাসতে কেউ যদি আপনার দিকে তাকিয়ে থাকে তখন মনে মনে জানবেন সে আপনাকে পছন্দ করে।


*যদি কোন মানুষ চোখ বন্ধ করে আপনার সাথে কথা বলে,তাহলে কখনই ভাববেন না যে সে আপনাকে দেখতে চাইছে না।এটা হতে পারে সে খুব মনোযোগ সহকারে আপনার সম্মতির সহিত কথা বলার চেষ্টা করছে।অর্থাৎ আলোচনার মূল বিষয়টিকে তুলে ধরার চেষ্টা করছে।তাই এটার মানে সে আপনাকে গুরুত্ব একটু বেশি দেয়।


*যদি কেউ আপনার সাথে কথা বলতে বলতে তা জামা প্যান্ট ঠিক করা বা একটু পরিষ্কার করার ভান করে,কিন্তু জামা প্যান্টে যদি কোন ময়লাই না থাকে,তাহলে বুঝবেন আপনি যেটা বলছেন সেটা তার পছন্দ হচ্ছেনা।কিন্তু সে সেটা আপনাকে ভয়ে সরাসরি বলতেও পারছেনা।


আরও পড়ুনঃ-ইমুতে এড বন্ধ করার উপায় -২০২১


*যখন কোন ব্যক্তি কোন কিছু শুনার সময় তার ভুরু কুচকায় তাহলে জানবেন সে যেটা শুনছে সেটা সে বিশ্বাস করতে পারছেনা এবং মানতে পারছেনা।তাই যদি আপনার কথাতে কেউ এমন আচারন করে তাহলে মনে মনে বুঝবেন তার মনে প্রচুর প্রশ্ন জেগেছে যে আপনি যেটা বল্লেন সেটা সঠিক কি না??কি করে বল্লেন?? এধরনের অনেক প্রশ্ন।


*যদি দেখেন কেউ কথা বলার সময় চোখটাকে নিচে এবং বাঁম দিকে নামিয়ে রেখেছে তখন জানবেন সে কিছু সিদ্ধান্ত বা কিছু চয়েস করার চেষ্টা করছে মনে মনে।আর যদি কেউ নিচে এবং ডানদিকে তাঁকাতে থাকে তাহলে জানবেন সে কিছু মনে করার চেষ্টা করছে।


*যখন কোন মানুষ কাউকে পছন্দ করে তখন তার কিছু জিনিস বা আচরন কপি করে ফেলে নিজের অজান্তেই।তাই কখনো কারো সাথে কথাবার্তা বলার সময় আপনি এমন কিছু কাজ করুন যেগুলো তাদের মনে লেগে যায়।যদি সে আপনাকে পছন্দ করে তাহলে অজান্তেই সে আপনার কাজটা করে ফেলবে পরবর্তী কারো সাথে কথা বলার সময়।


আরও পড়ুনঃ-Play Store এর Apps Memory Card এ রাখবেন কিভাবে?


*যদি কোন মানুষ আপনার কথা শুনে আপনাকে প্রশ্ন করে তাহলে আপনি মনে মনে ভেবে নিবেন সে আপনার কথাগুলো মনোযোগ দিয়ে শুনছে।যদি কোন ব্যক্তিকে বুঝাতে চান যে আপনি তাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন,তাহলে কথাবার্তা বলার মধ্যে ঐ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করুন।তাহলে দেখবেন সে অবশ্যই আপনাকে সাহায্য করবে এবং সে এটাও বুঝতে পারবে যে আপনি তার কথা মন দিয়ে শুনছেন ও আপনি তাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন।আর যদি কোন স্যারের  আপনি ভালো হতে চান তাহলে তাকে দু-একটি প্রশ্ন অবশ্যই করবেন।আর একটা কথা আপনি যখন কারো সাথে কথা বলবেন তখন তার সাথে আই কন্ট্যাক(চোখে চোখ রাখা) করতে ভুলবেননা।তাহলে সেই ব্যক্তিটি ভাবতে বাধ্য যে আপনি তাকে পছন্দ করছেন এবং আপনি খুব সৎ তার প্রতি।দেখবেন বিভিন্ন বড় বড় জিনিস বিক্রি করার সময় ক্রেতারা আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলে,যাতে আপনি মনোযোগ দিয়ে তাদের কথা শুনেন এবং তারা আপনাকে সন্তুষ্ট করতে পারে।


 

এই ছোট ছোট টিপস গুলো কিন্তু প্রতিনিয়ত আমাদের অনেক কাজে আসে ।সুতরাং যেগুলো বল্লাম সেগুলো মনে রাখবেন এবং প্রতিদিনই এগুলোকে করার চেষ্টা করবেন।তাহলে দেখবেন জিবনটা আস্তে আস্তে আপনার বদলিয়ে যাচ্ছে সবকিছু আপনার পক্ষে চলে আসছে এবং আপনার বিপরিতে যেন কিছুই যাবেনা।আজকে আপাতত এটুকুই টিপস থাকলো আপনাদের জন্য।যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে বা এরকম আরও টিপস পেতে চান তাহলে অব্শ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।আর একটা কথা আপনাদের বন্ধুদের মাঝে টিপসগুলো শেয়ার করতে ভুলবেননা।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post